ডাকাত সর্দারের কুকর্ম ডাকতে দিনের আলোতে সাংবাদিক পরিচয় - আজকের সংবাদ

সদ্য পাওয়া

Home Top Ad

বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন ০১৯২৬৮৭০৭২৭

Post Top Ad

বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন ০১৯২৬৮৭০৭২৭

বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন, ২০১৯

ডাকাত সর্দারের কুকর্ম ডাকতে দিনের আলোতে সাংবাদিক পরিচয়


ডাকাত সর্দারের কুকর্ম ডাকতে দিনের আলোতে সাংবাদিক পরিচয়।





আজকের সংবাদ ডেস্কঃ ডাকাত সর্দারের কুকর্ম ডাকতে দিনের আলোতে সাংবাদিকতার আইডি কার্ড গলায় ও হাতে ক্যামেরা সাথে ৪/৫জন সহযোগী নিয়ে নিজেকে বড়  সাংবাদিক হিসেবে পরিচয় দিয়ে রাতের আঁধারে সংঘবন্ধ ডাকাত নিয়ে হয়ে যেতেন ভয়ঙ্কর ডাকাত।





আটক ডাকাত সর্দার আলী হোসেন এমননি স্বীকারোক্তি মুলক জবানবন্দি দিলেন সোনারগাঁ থানা পুলিশের কাছে।





সোনারগাঁ থানা পুলিশের হাতে আটক ডাকাত আলী হোসেন বৃহস্পতিবার(২৭জুন)সকালে নারায়ণগঞ্জ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্ধি দেন।
সোনারগাঁ থানার এসআই আবুল কালাম আজাদ জানান, উপজেলার শম্ভুপুরা ইউনিয়নের ভিটিকান্দি গ্রামে এক প্রবাসীর বাড়িতে গত ২৬ জুন দিবাগত রাতে ডাকাতি হয়। ডাকাতির ঘটনায় সোনারগাঁ থানায় একটি মামলা দায়ের করা হলে,গত মঙ্গলবার রাতে মামলায় ডাকাত সর্দার আলী হোসেনসহ আরো ৪জনকে গ্রেফতার করা হয়।





এসময় ডাকাত দলের কাছ থেকে নগদ অর্থ,স্বর্ণসহ কয়েকটি দেশীয় অস্র উদ্ধার করা হয়।





গ্রেপ্তারকৃত ডাকাতদের জবানবন্ধি অনুযায়ী আলী হোসেন ডাকাত সর্দারকে গতকাল বুধবার রাতে রূপগঞ্জ থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। 
নারায়ণগঞ্জ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে বৃহস্পতিবার সকালে ডাকাত সর্দার আলী হোসেন ডাকাতির দোষ স্বীকার করে স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্ধি দেয়।
ডাকাত সর্দার আলী হোসেন ডাকাতির দোষ স্বীকার করে বলেন,রূপগঞ্জ প্রতিনিধি হিসেবে দৈনিক দেশ পত্রিকার একটি কার্ড নেন ২০ হাজার টাকা বিনিময়ে পরবর্তিতে ৬ মাস অন্তর অন্তর পত্রিকার অফিসে ৬ হাজার টাকা প্রদান করে নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে থাকেন।
দিনের বেলায় সাংবাদিক পরিচয়ে গলায় আইডি কার্ড ও ক্যামেরা ঝুলিয়ে সে সোনারগাঁ,আড়াইহাজার ও রূপগঞ্জের বিভিন্ন বাড়িতে ঘুরে বেড়াতেন।
এভাবে তারা দিনের বেলা সাংবাদিক পরিচয়ে বিভিন্ন বাড়িতে ঢুকে কিভাবে ডাকাতি করা যায় তারফন্দি আটতো এবং রাতের বেলা তারা একত্রিত হয়ে ডাকাতি করতো।
তাছাড়া ডাকাতির কাজে যে গাড়ীটি ব্যবহার করা হত সেই গাড়ীরটির সামনে সাংবাদিক পরিচয়ধারী আইডি কার্ডটি ঝুলিয়ে বসতো ডাকাত সর্দার আলী হোসেন।  কোথায়ও যদি পুলিশ তাদের গতিরোধ করতো তাহলে সে নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে ছাড়িয়ে নিত। সাংবাদিক পরিচয়ধারী আইডি কার্ডটি দেখানোর জন্য ডাকাতি করে যে ভাগ পেত তার অর্ধেক সে একাই নিয়ে নিতো।
এভাবেই রাতের বেলার দুধর্ষ ডাকাত সর্দার আলী হোসেন সাংবাদিক পরিচয়ধারী আইডি কার্ডটি ঝুলিয়ে দিনের আলোতে সবাইকে বোকা বানিয়ে হয়ে যেতেন সাংবাদিক।










কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন ০১৯২৬৮৭০৭২৭