ফেসবুক লাইভে আওয়ামীলীগ নেতা কালামের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েছে আহবায়ক কমিটি - আজকের সংবাদ

সদ্য পাওয়া

Home Top Ad

বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন ০১৯২৬৮৭০৭২৭

Post Top Ad

বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন ০১৯২৬৮৭০৭২৭

মঙ্গলবার, ২১ জুলাই, ২০২০

ফেসবুক লাইভে আওয়ামীলীগ নেতা কালামের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েছে আহবায়ক কমিটি


ফেসবুক লাইভে আওয়ামীলীগ নেতা কালামের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েছে আহবায়ক কমিটি।





আজকের সংবাদ ডেস্কঃ নারায়ণগন্জ জেলার সোনারগাঁ আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে বেশ টানাপোড়া শুরু হয়েছে অনেক আগে থেকেই। করোনা পরিস্থিতিতেও অভিযোগ সমালোচনার মধ্য দিয়ে সোনারগাঁ আওয়ামীলীগের দুই ধারার নেতাকর্মীরা পরস্পর বিরোধী অবস্থান নিয়েছে। সম্প্রতি উপজেলা আওয়ামীলীগকে নিয়ে ফেসবুক লাইফে মাহফুজুর রহমান কালাম উপজেলা আহবায়ক কমিটি ও লিয়াকত হোসেন খোকার কাছ থেকে মাস্ক নিয়ে একটি বক্তব্য দেন। সে বক্তব্যটির পর এবার কালামের সেই বক্তব্যের লেস ধরে পাল্টা বক্তব্য দিয়েছেন উপজেলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক কমিটি।





মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক কমিটির আহবায়ক অ্যাডভোকেট সামসুল ইসলাম ভূঁইয়া ও যুগ্ম আহবায়ক ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমান মাসুমের যৌথ স্বাক্ষরিত এক প্রতিবাদ পাঠান আহবায়ক কমিটি।





প্রতিবাদে তারা উল্লেখ করেন, গত ১৪ ই জুলাই ২০২০ ইং মাননীয় জাতীয় সংসদ সদস্য নাঃগঞ্জ -৩ জনাব লিয়াকত হােসেন খােকা সােনারগাঁও উপজেলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক কমিটির নেতা কর্মীদের মাঝে বিতরনের জন্য সরকার কর্তৃৃক প্রান্ত কেএন ৯৫ মাস্ক প্রদান করেন। এর প্রেক্ষিতে ১৫ ই জুলাই ২০২০ ইং সােনারগাঁও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক মাহফুজুর রহমান কালাম তার বক্তব্যে আওয়ামী লীগকে হেয় প্রতিপন্ন ও তাচ্ছিল্য করে বক্তব্য রাখেন যা দলীয় নেতাকর্মী দের মাঝে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হইয়াছে। এসময় মাহফুজুর কালামকে উদ্দেশ্য করে বলে, জনাব কালাম , আপনার কাছ থেকে এ ধরনের দায়িত্ব জ্ঞানহীন বক্তব্য নেতাকর্মীরা আশা করেন নাই। বৈশ্বিক মহামারি কোভিড -১৯ এ বাংলাদেশের সকল পর্যায়ের মানুষ যখন দিশেহারা তখন দলীয় নেতাকর্মীরা আপনাকে খুঁজে পায় নাই, কোথায় ছিলেন, মানুষের পাশে দাঁড়ান নি। রাজনীতি কি শুধু নিজের ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হওয়া বা নিজের আখের গুছিয়ে অট্টালিকা তৈরি করা। আপনার বক্তব্যের জবাব দিতে আমাদের রুচিতে বাধে তবুও নেতাকর্মীদের চাপে কিছু বক্তব্য তুলে ধরছি । আপনি দীর্ঘদিন মাননীয় সাংসদের চাটুকারিতা করেছেন নিজের সার্থে। ২০১৮ এর ডিসেম্বরে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বর্তমান সাংসদের সাথে বিভিন্ন সভা সমাবেশে “ লাঙ্গলই নৌকা ” বলে বক্তব্য রেখেছেন । ২০১৯ এ উপজেলা নির্বাচনে নৌকা প্রতিকের বিরুদ্ধে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসাবে বর্তমান সংসদের সমর্থনে নির্বাচন করে তৃতীয় বারের মত পরাজিত হইয়াছেন। তখন আপনি আওয়ামী লীগকে জাতীয়পার্টির কোন টিমে পরিনত করেছিলেন? অপরদিকে তৎকালীন সােনারগাঁ উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এডভােকেট সামসুল ইসলাম ভূইয়ার নেতৃত্বে উপজেলার আওয়ামী লীগ, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগসহ সকল সহযোগী সংগঠনের সর্বস্তরের নেতা কর্মী নৌকা প্রতিকের পক্ষে ঐক্যবদ্ধ থেকে বিজয় ছিনিয়ে আনেন । বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভাপতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির বর্ধিত সভায় নৌকার বিপক্ষে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করার কারনে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহনের সর্ব সম্মত সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। যার প্রেক্ষিতে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে দলীয় শৃংখলা ভঙ্গের দায়ে আপনাকে উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদকের পদ থেকে অব্যাহতি প্রদান করেন। আর এজন্য দলের পদ হারিয়ে আপনার গাঁয়ে এতো জ্বালা । নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভায় সােনারগাঁ উপজেলাধীন জেলা কমিটিতে থাকা সকল সদস্যের দাবীর প্রেক্ষিতে জেলা কমিটির অধিকাংশ সদস্যের মতামতের ভিত্তিতে জেলা আওয়ামী লীগের সম্মানিত সভাপতি ও সাধারন সম্পাদরে যৌথ স্বাক্ষরে বিধি মােতাবেক সােনারগাঁ উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক কমিটি গঠিত হয় । যাহা কেন্দ্র দ্বারা স্বীকৃত। ২০১৪ সালে উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনােনীত প্রার্থীর বিপক্ষে বাংলাদেশে আলােচিত সেভেন মার্ডারের কারিগর বর্তমানে ফাঁসির দন্ড প্রাপ্ত আসামী নুর হােসেনকে সােনারগাঁ এনে ৩০ টি গাড়ীর বহর নিয়ে বিভিন্ন অস্ত্র শস্ত্রে সজ্জিত করে বিভিন্ন ইউপি চেয়ারম্যান মেম্বার ও দলীয় নেতাকর্মীদের গ্রেড করা, মারধর করা ও অনেককে হত্যার হুমকি দিয়েছেন। সেদিনের বিভিষিকা আজ ও সােনারগাঁ এর দলীয় নেতাকর্মী ও জনগনের মনে হলে শিউরে উঠেন। সে দিন আপনার এই সন্ত্রাসের কারনে আওয়ামী লীগ মনােনীত প্রার্থী পরাজিত হয় বিজয়ী হন বিএনপি প্রার্থী । প্রকৃত পক্ষে মাননীয় সাংসদের দেওয়া মাস্ক এবং নারায়ণগন্ত জেলা কারাগারে কয়েদীদের তৈরি মাস্ক সােনারগাঁও উপজেলা আওয়ামী লীগ প্রতিটি ১৫/= টাকা করে কিনে এক সাথে প্রতিটি ইউনিয়ন ও পৌর আওয়ামী লীগের নিকট বিতরন করা হইয়াছে। জাতীয়পার্টিতে যোগদানকারী আওয়ামী লীগের কেউ নয় । সােনারগাঁও উপজেলা থেকে গ্রাম পর্যন্ত কোনও আওয়ামী নেতাকর্মী জাতীয় পার্টিতে যােগদান করেন নাই এবং ভবিষ্যতে ও অন্য কোনাে দলে যােগদান করার প্রশ্নই ওঠে না । উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সকল সহযােগী সংগঠনের সর্বস্তরের নেতাকর্মী আহবায়ক কমিটির নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ। নেতাকর্মীদের বিভ্রান্ত করার জন্য ব্যাখ্যা দেওয়ার কোন সুযোগ নাই । আমরা উপজেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে মাহফুজুর রহমান কালামের ফেসবুক লাইভে দেওয়া বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। ভবিষ্যতে এধরনের অসৌজন্যমূলক ও অপ্রাসঙ্গিক বক্তব্য এবং আওয়ামীলীগকে জনসম্মুখে হেয় প্রতিপন্ন করা থেকে বিরত থাকবেন বলে আশা করি।


কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন ০১৯২৬৮৭০৭২৭