র‌্যাব-১১র অভিযানে একাধিক ছাত্রীকে ধর্ষণ ও যৌন হয়রানির অভিযোগে মুফতি মোস্তাফিজুর রহমান গ্রেফতার - আজকের সংবাদ

সদ্য পাওয়া

Home Top Ad

বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন ০১৯২৬৮৭০৭২৭

Post Top Ad

বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন ০১৯২৬৮৭০৭২৭

রবিবার, ২৮ জুলাই, ২০১৯

র‌্যাব-১১র অভিযানে একাধিক ছাত্রীকে ধর্ষণ ও যৌন হয়রানির অভিযোগে মুফতি মোস্তাফিজুর রহমান গ্রেফতার


র‌্যাব-১১র অভিযানে একাধিক ছাত্রীকে ধর্ষণ ও যৌন হয়রানির অভিযোগে মুফতি মোস্তাফিজুর রহমান গ্রেফতার





আজকের সংবাদ ডেস্কঃ নারায়ণগন্জের সদর উপজেলার ফতুল্লার ভূইগড় এলাকায় দারুল হুদা আল ইসলামী মহিলা মাদ্রাসার একাধিক ছাত্রীকে ধর্ষণ ও যৌন হয়রানির অভিযোগে মুফতি মোস্তাফিজুর রহমানকে (২৯) আটক করেছে র‌্যাব। তিনি ওই প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা ও অধ্যক্ষ (বড় হুজুর)।





শনিবার(২৭জুলাই)দুপুরে ভুক্তভোগী ছাত্রীদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে মাদ্রাসাটিতে অভিযান চালায় র‌্যাব-১১ এর একটি টিম। অভিযোগের প্রাথমিক প্রমাণ পাওয়ায় তাকে আটক করে র‌্যাব।





অভিযুক্ত মোস্তাফিজুর রহমান নেত্রকোনা জেলার লক্ষীগঞ্জের কাওয়ালি কোনা গ্রামের মোঃওয়াজেদ আলীর ছেলে। তিনি মাদ্রাসাটি পরিচালনা করছেন গত ছয় বছর যাবৎ এবং মাদ্রাসায় পরিবার নিয়েই থাকতেন।





র‌্যাব-১১ সিপিএসসি’র কোম্পানি কমান্ডার মেজর তালুকদার নাজমুস সাকিব জানান, দারুল হুদা মহিলা মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা ও বড় হুজুর মোস্তাফিজুর রহমান একাধিক ছাত্রীকে ধর্ষণ ও যৌন হয়রানি করেছেন এমন একটি অভিযোগের তদন্তে এসে আমরা প্রাথমিকভাবে অভিযোগের সত্যতা পাই। আমরা চারজন ছাত্রীর ব্যাপারে জানতে পেরেছি যাদের তিনি যৌন হয়রানি ও শ্লীলতাহানি করেছেন। ভিক্টিমদের বয়স ১০-১৬ বছরের মধ্যে। একই সাথে কিছু মোবাইল রেকর্ড পেয়েছি যার ভিত্তিতে ঘটনার সত্যতা পাই। আমরা তাকে আটক করেছি। আরো তদন্ত ও জিজ্ঞাসাবাদের পর বিস্তারিত জানা যাবে। অভিযোগের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলেও জানান তিনি।





তিনি বলেন, এর আগেও মোস্তাফিজুরের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ উঠলে স্থানীয়ভাবে বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়া হয়।
এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানান র‌্যাবের উর্ধ্বতন এই কর্মকর্তা।


কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন ০১৯২৬৮৭০৭২৭