সোনারগাঁয়ে তৃতীয় শ্রেণীর স্কুল ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ - আজকের সংবাদ

সদ্য পাওয়া

Home Top Ad

বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন ০১৯২৬৮৭০৭২৭

Post Top Ad

বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন ০১৯২৬৮৭০৭২৭

বুধবার, ৮ জানুয়ারী, ২০২০

সোনারগাঁয়ে তৃতীয় শ্রেণীর স্কুল ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ


সোনারগাঁয়ে তৃতীয় শ্রেণীর স্কুল ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ





তাহিন আহম্মেদঃ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে তৃতীয় শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।





গতকাল মঙ্গলবার(৭ জানুয়ারী)বিকেলে উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের বশিরগাঁও গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পরপরই ধর্ষক সিয়াম সুকৌশলে পালিয়ে যায়।





জানা যায়,উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের বশিরগাঁও গ্রামের বাসিন্দা বখাটে সিয়াম,মালিপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক ছাত্রীকে মঙ্গলবার বিকেলে সুকৌশলে জঙ্গলে ঢেকে নিয়ে ওই ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।
এসময় ধর্ষণকারী সিয়াম ওই ছাত্রীকে ঘটনা কাউকে না জানানোর জন্য হুমকি দিয়ে চলে যায়। পরে ছাত্রী বিষয়টি তার বাবা মাকে খুলে বললে তার বাবা মা গ্রাম্য সালিশকারী নুরুল ইসলাম ও খবিরউদ্দিনের কাছে বিচার দাবি করে। সালিশকারী খবিরউদ্দিন ও নুরুল ইসলাম ওই মেয়েকে বিয়ে দেওয়ার সময় যাবতীয় খরচ বহন করার প্রলোভন দেখায়। এ বিষয়টি ছাত্রীর বাবা-মা না মেনে থানায় যেতে চাইলে তাদের বাধা প্রদান করে বলে অভিযোগ উঠে ওই সালিশকারীদের বিরুদ্ধে।





ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রীর মা অভিযোগ করে বলেন, সিয়াম তার নানার বাড়িতে বসবাস করে। তার মেয়েকে মঙ্গলবার বিকেল ৪টার দিকে বাড়ি থেকে ডেকে জঙ্গলে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। তার মেয়ে বর্তমানে অসুস্থ্য অবস্থায় আছে। গ্রাম্য সালিশকারী নুরুল ইসলাম ও খবিরউদ্দিনের কাছে বিচার দাবী করলে বিয়ের সময় খরচ বহন করার কথা বলে থানায় যেতে বাঁধা দেয়।





সালিশকারী নুরুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ধর্ষণের ঘটনায় বিচার নিয়ে আমার কাছে এসেছিল। আমি তাদের সঠিক বিচার পাইয়ে দেওয়ার কথা বলেছি। তবে থানায় যেতে বাঁধা দেওয়ার বিষয়টি সত্য নয়।





এব্যাপারে সোনারগাঁ থানার অফিসার ইনচার্জ মনিরুজ্জামান বলেন,ধর্ষণের ঘটনাটি আমার জানা নেই। কেউ অভিযোগ নিয়ে আসেনি, অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন ০১৯২৬৮৭০৭২৭