২৪ঘন্টা না পেরুতেই বন্ধ হওয়া রয়েল হাসপাতালসহ ৪টি হাসপাতাল ফের চালু - আজকের সংবাদ

সদ্য পাওয়া

Home Top Ad

বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন ০১৯২৬৮৭০৭২৭

Post Top Ad

বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন ০১৯২৬৮৭০৭২৭

মঙ্গলবার, ৮ অক্টোবর, ২০১৯

২৪ঘন্টা না পেরুতেই বন্ধ হওয়া রয়েল হাসপাতালসহ ৪টি হাসপাতাল ফের চালু


২৪ ঘন্টা না যেতেই বন্ধ হওয়া রয়েল হাসপাতালসহ ৪টি হাসপাতাল ফের চালু।





ইমরান হোসেনঃ ভুল চিকিৎসা,ডাক্তারের অবহেলাসহ নানা অভিযোগে সিভিল সার্জনের নির্দেশে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলায় বন্ধ হওয়া রয়েল স্পেসালাইজড হাসপাতাল,সোনারগাঁ জেনারেল হাসপাতাল,মেডিকেয়ার জেনারেল হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টার ও মাতৃসেবা হাসপাতাল নামের ৪টি হাসপাতাল ২৪ ঘন্টা না যেতেই ফের চালু হয়েছে।





হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দাবি তারা প্রশাসনের সাথে কথা বলেই হাসপাতালগুলো চালু করেছেন। প্রশাসন জানিয়েছেন বিভিন্ন শর্তে মুচলেকা দিয়ে তাদের হাসপাতালগুলো খোলার অনুমতি দেয়া হয়েছে। বন্ধ করা হাসপাতাল ২৪ ঘন্টা না পেরুতেই খুলে দেয়ায় স্থানীরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।
উল্লেখ্য যে,গত দু’ মাসে মোগরাপাড়া চৌরাস্তা এলাকায় কয়েকটি হাসপাতালে ভুল চিকিৎসায় শিশুসহ ২জন প্রসূতির মৃত্যু হয়।এ নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়।সংবাদ প্রকাশের পর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ হালিমা সুলতানা হক এসব হাসপাতালগুলো পরিদর্শন করে সির্ভিল সার্জেন বরাবর রির্পোট করলে সেই রিপোর্টের পর নারায়ণগঞ্জ জেলার সিভিল সার্জেন ডাঃমোহাম্মদ ইমতিয়াজ চলতি মাসের পহেলা তারিখে অভিযান চালিয়ে রয়েল স্পেসালাইজড হাসপাতাল,সোনারগাঁ জেনারেল হাসপাতাল,মেডি-কেয়ার জেনারেল হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টার ও মাতৃসেবা হাসপাতাল নামের ৪টি প্রতিষ্ঠানকে সাময়িক ভাবে বন্ধ করে দেন।
হাসপাতাল গুলো বন্ধ করে দেয়ার ২৪ ঘন্টা না পেরুতেই তাদের কার্যক্রম শুরু করেছে।কোন কোন প্রতিষ্ঠান মাইক লাগিয়ে রোগীদের হাসপাতালে আনার চেষ্টা করেন।বন্ধ করে দেয়ার ২৪ ঘণ্টা না পেরুতেই হাসপাতালগুলো খুলে পুণরায় তাদের সেবা কার্যক্রম চালু করায় বিস্ময় প্রকাশ করেছেন স্থানীয়রা।তারা অভিযোগ করে বলেন,অনেক দিন পর অন্যায়ের প্রতিবাদ দেখলাম।নামে-বেনামে খোলা হাসপাতাল গুলোতে কোন দিন প্রশাসনকে অভিযান পরিচালনা করতে দেখিনি। এবারই প্রথম নারায়ণগঞ্জ সিভিল সার্জেন ও উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃহালিমা সুলতানা হক অভিযান পরিচালনা করে দোষী হাসপাতালগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়ে ছিলেন।কিন্তু ২৪ ঘন্টার মধ্যে কিভাবে এসব দূর্নীতিগ্রস্থ প্রতিষ্ঠানগুলো চালু হলো তা আমাদের বোধগম্য নয়।আমরা আশা করি বন্ধ করা হাসপাতালগুলি যদি সরকারী নিময়কানুন মেনে পরিচালনা করে এবং সরকারী ভাবে নিয়মিত মনিটরিংয়ের ব্যবস্থা করে তাহলে সাধারণ মানুষ স্বাস্থ্য সেবা থেকে বঞ্চিত হবে না।
এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ হালিমা সুলতানা হক জানান, মোগরাপাড়ার ৪টি হাসপাতাল সাময়িক ভাবে বন্ধ করা হয়েছিল। তাদের বলা হয়েছিল প্রত্যেক হাসপাতালে সার্বক্ষনিক রোগীদের দেখাশোনার জন্য একজন করে এম বি বিএস ডাক্তার, একজন ডিপ্লোমা নার্স, প্রয়োজনীয় কাগজপত্র ও যন্ত্রপাতিসহ পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। যদি তারা এ সব শর্ত মেনে চলতে পারে তাহলে হাসপাতালগুলো পরিচালনা করার সুযোগ দেয়া হবে। তবে তারা আমাদের কাছে সময় চেয়েছেন। আমরা একটি নিদিষ্ট সময় বেঁধে দিয়েছি সে সময়ে মধ্যে তারা সব শর্ত পূরন করতে পারলে হাসপাতাল পরিচালনা করতে পারবেন।


কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Post Bottom Ad

বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন ০১৯২৬৮৭০৭২৭